HomeGlobal Newsকারণ দর্শানোর নোটিশ কি? কিভাবে সরকারি কারণ দর্শানো নোটিশ এর জবাব দিবেন?

কারণ দর্শানোর নোটিশ কি? কিভাবে সরকারি কারণ দর্শানো নোটিশ এর জবাব দিবেন?

কারণ দর্শানোর নোটিশ: কারণ দর্শানোর আদেশ হল এমন এক ধরনের আদালতের আদেশ যার জন্য একটি মামলার এক বা একাধিক পক্ষকে ন্যায্যতা, ব্যাখ্যা বা আদালতে কিছু প্রমাণ করার প্রয়োজন হয়। শোকজ নোর্টিশ বা কারন দর্শানোর নোটিশ কি ও কারণ দর্শানোর নোটিশ লেখার নিয়ম এবং সরকারি/বেসরকারি কারণ দর্শানো নোটিশ এর জবাব কিভবে দিবেন এর বিস্তারিত আলোচনা করা হয়েছে ।

সরকারি/বেসরকারি কারণ দর্শানো নোটিশ: বিভিন্ন কারণে অফিসের বস হাতে ধরিয়ে দিতে পারেন শোকজ লেটার (Show cause notice/letter) বা (karon dorshanor notice) কারণ দর্শানোর নোটিশ

শাসন ও এইচআর বিভাগে যারা জব করে তাদের নিকট কারণ দর্শানো নোটিশ খুবই গুরুত্ব বহনকরে প্রতিনিয়ত বিভিন্ন অনিয়ম, অপরাধচুরি, কাজের ফাঁকি ইত্যাদি বিষয়ের জন্য কারণ দর্শানোর নোটিশ দিতে হয় ।

এতে সন্তুষ্টি মুলক জবাব দিতে না পারলে, কর্তৃপক্ষ নিতে পারে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা। বিভিন্ন ধরনের অপরাধ কারণ দর্শানো নোটিশের মাধ্যমে তা নিষ্পত্তি করতে হয় ।

কারণ দর্শানোর নোটিশ কি?

কোন শ্রমিক/কর্মচারী যদি নিয়মনীতি ভঙ্গ করেন, অবহেলা বা বিমুখ করলে বা জেনে শুনে স্বজ্ঞানে প্রতিষ্ঠানের স্বার্থ বিরোধী কাজ করলে বা দাপ্তরিক কাজের নির্দেশ অমান্য করলে, শৃঙ্খলা ভঙ্গ করলে বা অসদাচরনের দোষে দুষ্ট হলে বা নৈতিকতা বিরোধী কাজের দোষে দোষী সাব্যস্ত হলে কারণ দর্শানো নোটিশের মাধ্যমে চূড়ান্ত নিষ্পত্তি করা হয় ।

কারণ দর্শানো নোটিশের নমুনা

সুপার ভাইজার- নাইট ডিউটির roster এর সাথে খারাপ আচরন এর জন্য ।

বরাবর
ব্যবস্থাপক মানবসম্পদ উন্নয়ন বিভাগ
বিষয় –কারণ দর্শনোর জবাব প্রসঙ্গে।
জনাব,
সবিনয় বিনীত নিবেদন এই যে, আমি আপনার সুনামধন্য তৈরি পোশাক শিল্পকারখানায় সততা ও ন্যায় নিষ্টার সহিত দীর্ঘ দিন যাবত কাজ করে আসিতেছি । এমতাবস্থায় গত ৩০/০১/২০১৯ ইং তারিখে আমার বিরুদ্ধে অভিযোগ আনায়ন করা হয়। যাহাতে উল্লেখ্য করা হয়, সেকশনের করমকরতাগনদের অমান্য করা সহ , pg–266 প্রিন্টের পার্টে স্যম্পল দিতে না পারাটা ইচ্ছে কৃতভাবে বা চরম অবহেলা ও অমনোযোগের কারণ।
আসলে গত ৩০–০১–১৯ ইং সকাল ১১টা ১৫ মিনিটে আমি pg–266 প্রিন্টের পার্টটা হাতে পাই এবং সাথে সাথে লিখিত এবং মৌখিক ভাবে আমার সেকশন প্রধান কে জানাই। pg 266 গারমেন্টসের প্রধান ফেব্রিকস না থাকায় তিনি আমার কাছে রেখে দিতে বলেন। ওই দিনে আনুমানিক দুপুর ১২ টার দিকে আমি pg 266 মেইন (প্রধান) ফেব্রিকস হাতে পাই এবং সাথে সাথে সুইং করার জন্য দায়িত্বরত অফিসার কে প্রিন্টের পার্টটি দিয়ে দেই । তখন তিনি মেইন (প্রধান) ফেব্রিকস কালারের সাথে প্রিন্ট কালার মিলিয়ে দেখতে পান কালারের মিল নাই এবং Artwork অনুযায়ী প্রিন্টের নিচে একটা লগো নেই।
এই ইসু ধরে সেকশন প্রধান আমাকে অনেক গালাগালি করেন এবং ৩ দিন কাজ না দিয়ে বসিয়ে রাখেন। আমি আমার সেকশন প্রধানের কাছে ক্ষমা চেয়েছি , যদি আমার কোন অন্যায় হয়ে থাকে বা আমি যদি কোন ভুল করে থাকি আমাকে মাফ করে দেন এবং দয়া করে পূর্বের নিয়ম আনুযায়ী কাজ করতে দেন। তার পরও আমি ক্ষমা পাইনি।এদিকে আমাকে ৩ দিন কাজে না দিয়ে বসিয়ে রাখায় আমি মানসিকভাবে অসুস্থ হয়ে পড়ি ও নিজেকে অপরাধ বোধ করি। আসলে সেকশনের করমকরতাগনদের অমান্য করা বিষয়টি ভিত্তিহীন সাজানো। আমি মনে করি আমার বিরুদ্ধে আনিত অভিযোগ ইচ্ছাকৃত এবং পরিকল্পিত, এই অভিযোগের বাহিরে অন্য কোন ইসু থাকতে পারে।

অতএব, জনাবের নিকট আমার আকুল আবেদন। উপরক্ত বিষয়বলি সুবিবেচনা করে আমার যদি কোন ভুল হয়ে থাকে আমাকে ক্ষমা দৃষটিতে দেখবেন। এবং আগের সিডিউল অনুযায়ী কাজ করার ও সুন্দর পরিবেশ দিয়ে আমাকে মানসিক স্বস্তিতে সুযোগর কামনা করছি।

কারণ দর্শানোর নোটিশ লেখার নিয়ম

প্রেরকঃ ব্যবস্থাপক, বঙ্গ বাজার , ঢাকা।

প্রাপকঃ কালা মানিক, সহকারী হিসাব রক্ষক।

বিষয়: বিনা অনুমতিতে কর্মস্থল ত্যাগ ও বিলম্বে আগমনের কারণ দর্শানো প্রসঙ্গে।

এতদ্বারা আপনার অবগতির জন্য জানানো যাইতেছে যে,  বিগত ২২/০৭/২০১৮ খ্রিঃ তারিখে নিম্ন স্বাক্ষরকারীর বিনা অনুমতিতে কর্মস্থলে অনুপস্থিত এবং ০১/০৭/২০১৮ খ্রি. হইতে ০৭/০৭/২০১৮ খ্রি. তারিখ পর্যন্ত কর্মস্থলে  বিলম্বে আগমন করেন যাহা চাকুরী বিধির পরিপন্থী। এমতাবস্থায় আপনার বিরুদ্ধে কেন আইনানুগ ব্যবস্থাগ্রহন করা হইবে না, নোটিশ পাওয়ার ০৭(সাত) কার্য  দিবসের মধ্যে কারণ দর্শানোর জন্য নির্দেশ প্রদান করা হইল। অন্যথায় আপনার বিরুদ্ধে বিধি মোতাবেক ব্যবস্থা গ্রহণ করা হইবে।

ব্যবস্থাপক

(আল হুসাইন)

আরো পড়ুন : লটারি রেজাল্ট

কারণ দর্শানো নোটিশের জবাব লেখার নিয়ম

বিনা অনুমতিতে কর্মস্থল ত্যাগ- কারণ দর্শানো নোটিশ নমুনা

  • প্রেরকঃ ব্যবস্থাপক, বঙ্গ বাজার , ঢাকা।
  • প্রাপকঃ কালা মানিক, সহকারী হিসাব রক্ষক।
  • বিষয়: বিনা অনুমতিতে কর্মস্থল ত্যাগ ও বিলম্বে আগমনের কারণ দর্শানো প্রসঙ্গে।

এতদ্বারা আপনার অবগতির জন্য জানানো যাইতেছে যে,  বিগত ২২/০৭/২০১৮ খ্রিঃ তারিখে নিম্ন স্বাক্ষরকারীর বিনা অনুমতিতে কর্মস্থলে অনুপস্থিত এবং ০১/০৭/২০১৮ খ্রি. হইতে ০৭/০৭/২০১৮ খ্রি. তারিখ পর্যন্ত কর্মস্থলে  বিলম্বে আগমন করেন যাহা চাকুরী বিধির পরিপন্থী। এমতাবস্থায় আপনার বিরুদ্ধে কেন আইনানুগ ব্যবস্থাগ্রহন করা হইবে না, নোটিশ পাওয়ার ০৭(সাত) কার্য  দিবসের মধ্যে কারণ দর্শানোর জন্য নির্দেশ প্রদান করা হইল। অন্যথায় আপনার বিরুদ্ধে বিধি মোতাবেক ব্যবস্থা গ্রহণ করা হইবে।

ব্যবস্থাপক

(আল হুসাইন)


আপনার কারণ দর্শানো নোটিশের জবাবে নীচের বিষয়গুলি অবশ্যই থাকবে

  • আপনার সমস্যার স্পষ্ট বিবরণ দিন।
  • আপনার অনুরোধ নির্দিষ্ট এবং স্পষ্ট করে বলুন। আপনি কী চান স্পষ্ট জানান।
  • পরবর্তী পদক্ষেপ কি ভাবে নিচ্ছেন তা স্পষ্ট জানান।
karon dorshanor notice

কারণ দর্শানোর নোটিশ এর উত্তর

মাননীয় ব্যবস্থাপক, বঙ্গ বাজার , ঢাকা। ০৯।০৯।২০১৮ খ্রিঃ

বিষয় : কারণ দর্শানো নোটিশের জবাব প্রসঙ্গে ।

জনাব,

যথা বিহীত সম্মান পূর্বক কর্তৃপক্ষের অবগতির জন্য আমি এই মর্মে প্রত্যয়ন করিতেছি যে গত পহেলা জুলাই ২০১৮ খ্রিঃ তারিখ থেকে ০৭ই জুলাই ২০১৮ খ্রিঃ তারিখ পর্যন্ত প্রতিষ্ঠানের নিয়ম মেনে উপস্থিত ছিলাম। উল্লেখ্য করা প্রয়োজন যে , হাজিরা খাতা রেকর্ড অনুযায়ী- ১লা জুলাই অফিসে আগমন করি ৯:৪৫ মিনিটে, ২রা জুলাই অফিসে আগমন করি ৯:৪৫ মিনিটে,৩রা জুলাই অফিসে আগমন করি ৯:৩০ মিনিটে, ৪ঠা জুলাই অফিসে গমন করি ৯:৪৫ মিনিটে, ৫ই জুলাই Casual Leave নেই, ৬ই জুলাই ছিল সপ্তাহিক ছুটি শুক্রবার, ৭ই জুলাই অফিসে গমন করি ৯:০০ টায়। আর এদিকে প্রস্থানটা অবশ্যই দায়িত্বরত কর্তৃপক্ষের অবগত পূর্বকই হয়েছে। কিন্তু কারণ দর্শানো নোটিশ (সুত্র নং-শামকামা ২০১৮/১৭৫) মোতাবেক আমি উক্ত কার্য দিবস গুলোতে অনিয়মিত ছিলাম। অন্যদিকে ২২ শে জুলাই ২০১৮ ‍খিৃ. তারিখে আমি মানসিক অক্ষমতা জনিত কারণে উক্ত কার্য দিবসে অনুপস্থিত ছিলাম। ঐ দিনে আমি এমনটাই Emotional Illness ছিলাম যে পূর্বে  অবহিত করণের কোনো সুযোগই সৃষ্টি হয়নি।

তবে এর দ্বারা আচরণবিধি লঙ্ঘন হয়েছে বলে আমি মনে করি না। কারণ অত্র অফিসের কার্য  দিবস শুরু হয় ৯:৪০ মিনিটে । তবে এই সর্তকতাকে সাধুবাদ জানাই।

যাই হোক যে যাদের দায়িত্বে অধিষ্ঠিত তাকে, তাদের সম্পর্কে জবাবদিহি করাটাও কিন্তু পার্থিব নিয়মে গড়ে ওঠা সমাজ ব্যবস্থারও অংশ। বাস্তবে জবাবদিহির কতটুকু বলবৎ রয়েছে সে কথা ভিন্ন। ইসলাম কিন্তু অত্যন্ত সচেতনতার সঙ্গে এ জবাবদিহির কথা স্মরণ করিয়ে দিয়েছে। আখেরাতে অনিবার্য জবাবদিহিতাকে কোনো নির্বোধ যদি উপেক্ষা ও করে – সমাজ, ও প্রশাসনিক জবাবদিহিতাকে মনে প্রাণে লালন করে, তাহলেও যে কোনো অনিয়ম করতে তার পিছপা হওয়াটা স্বাভাবিক। তবে এক্ষেত্রে প্রশাসনের পক্ষে টপ টু বটম সবার জন্য জবাবদিহিতা মূলক বিধি ব্যবস্থায় প্রচলন থাকাও বাঞ্চনীয়।

পরিশেষে আমি দ্ব্যর্থহীন ভাবে বলতে চাই প্রতিষ্ঠানের কর্মকান্ড আমি সহ অন্য কারো দ্বারা শৃংখলার পরিপন্থি হলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিবেন। এমনটাই আশা।

নিবেদক

মানিক

সহকারী হিসাব রক্ষক।

আরো পড়ুন : সর্বশেষ খেলার খবর

কারণ দর্শানোর নোটিশ এর উত্তর গার্মেন্টস

গার্মেন্টস কারণ দর্শানো নোটিশ

নিম্ন বর্ণিত কাজ করা অসদাচরণ হিসাবে বিবেচিত হবে এবং কারণ দর্শানোর উত্তর দিতে হবে-

  • উপরস্থের কোন আইনসংগত বা যুক্তিসংগত আদেশ মানার ক্ষেত্রে এককভাবে বা অন্যের সঙ্গে সংঘবদ্ধ হইয়া ইচ্ছাকৃতভাবে অবাধ্যতা ।
  • মালিকের ব্যবসা বা সম্পত্তি সম্পর্কে চুরি [আত্মসাৎ] প্রতারণা বা অসাধুতা ।
  • মালিকের অধীন তাঁহার বা অন্য কোন শ্রমিকের চাকুরী সংক্রান্ত ব্যাপারে ঘুষ গ্রহণ বা প্রদান ।
  • বিনা ছুটিতে অভ্যাসগত অনুপস্থিতি অথবা ছুটি না নিয়া এক সঙ্গে দশ দিনের অধিক সময় অনুপস্থিতি ।
  • অভ্যাসগত বিলম্বে উপস্থিতি; (চ) প্রতিষ্ঠানে প্রযোজ্য কোন আইন, বিধি বা প্রবিধানের অভ্যাসগত লঙ্ঘন ।
  • প্রতিষ্ঠানে উচ্ছৃংখলতা, দাংগা-হাংগামা, অগ্নিসংযোগ বা ভাংচুর ।
  • কাজে-কর্মে অভ্যাসগত গাফিলতি ।
  • প্রধান পরিদর্শক কর্তৃক অনুমোদিত চাকুরী সংক্রান্ত, শৃঙ্খলা বা আচরণসহ, যে কোন বিধির অভ্যাসগত লঙ্ঘন ।
  • মালিকের অফিসিয়াল রেকর্ডের রদবদল, জালকরণ ।

কারণ দর্শানোর নোটিশ কি?

কারণ দর্শানোর নোটিশ হলো- কোন শ্রমিক/কর্মচারী যদি নিয়মনীতি ভঙ্গ করেন, অবহেলা বা বিমুখ করলে বা জেনে শুনে স্বজ্ঞানে প্রতিষ্ঠানের স্বার্থ বিরোধী কাজ করলে বা দাপ্তরিক কাজের নির্দেশ অমান্য করলে, শৃঙ্খলা ভঙ্গ করলে বা অসদাচরনের দোষে দুষ্ট হলে বা নৈতিকতা বিরোধী কাজের দোষে দোষী সাব্যস্ত হলে কারণ দর্শানো নোটিশের মাধ্যমে চূড়ান্ত নিষ্পত্তি করা হয় ।

কারণ দর্শানোর নোটিশ এর জবাব কিভাবে লিখব?

কারণ দর্শানোর নোটিশ এর জবাব কিভাবে লিখতে হয় তা উপরে দেওয়া হয়েছে ।

দর্শানো নোটিশের জবাবে কিভাবে লিখতে হয়?

আপনার কারণ দর্শানো নোটিশের জবাবে নীচের বিষয়গুলি অবশ্যই থাকবে — আপনার সমস্যার স্পষ্ট বিবরণ দিন। আপনার অনুরোধ নির্দিষ্ট এবং স্পষ্ট করে বলুন। আপনি কী চান স্পষ্ট জানান। পরবর্তী পদক্ষেপ কি ভাবে নিচ্ছেন তা স্পষ্ট জানান।

Tags: কারন দর্শানো নোটিশ, Karon dorshanor notice, sokoj meaning in bengali, autogarments, sokoj letter, কারণ দর্শানোর নোটিশ কিভাবে লিখতে হয়, কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ানসকে কারণ দর্শানো নোটিশ, কারণ দর্শানো, কারণ দর্শানো নোটিশের জবাব ,কারণ দর্শানো নোটিশের জবাব লেখার নিয়ম, কারণ দর্শানো নোটিশের জবাব দিবেন কিভাবে, কারণ দর্শানো নোটিশের জবাব কিভাবে লিখতে হয়,

কারণ দর্শানোর নোটিশের জবাব কিভাবে লিখতে হয়, সরকারি কারণ দর্শানোর নোটিশ, কারণ দর্শানোর নোটিশ এর উত্তর, কারণ দর্শানোর নোটিশ এর উত্তর গার্মেন্টস, কারণ দর্শানোর নোটিশ নমুনা, কারণ দর্শানোর নোটিশ ইংরেজি, কারণ দর্শানোর নোটিশ গার্মেন্টস, কারণ দর্শানোর নোটিশ এর উত্তর গার্মেন্টস,

RELATED ARTICLES
- Advertisment -

Most Popular

Recent Comments